সৌদি আরবে করোনায় মৃ’ত্যুর রেকর্ড

সৌদি আরবে গত ২৪ ঘণ্টায় ক’রোনা ভা’ইরাসে আক্রা’ন্ত হয়ে ৫৬ জনের ‘মৃ’ত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশ’টিতে করো’নায় মৃ’তের সং’খ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৮৫৮ জনে।এছাড়া নতুন করে আ’ক্রান্ত হয়েছেন আরও ৪ হাজার ১২৮ জন।

শনিবার (৪ জুলাই) দেশ’টির স্বা’স্থ্য মন্ত্র’ণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।আরব নিউজ জানিয়েছে, মা’র্চের ২ তারিখ থেকে সৌদি আরবে করো’নার প্রাদু’র্ভাব শুরু’র পর থেকে একদিনে দেশটিতে অর্ধ’শতা’ধিক মানুষের প্রাণ’হানি ঘ’টেনি।সৌদি আরবে করো’নায় মো’ট আক্রা’ন্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫ হাজার ৯২৯ জন। নতুন করে আক্রা’ন্তের তালিকায় রি’য়াদে ৩৬০, দা’ম্মামে ৩১৫, হুফ’ফে ২১৭ এবং কা’তিফের ২১৪ জনের নাম রয়েছে।গত ২৪ ঘণ্টায় করো’নামু’ক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৪২ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট ১ লাখ ৪৩ হাজার ২৫৬ জন কোভিড-১৯ রোগী সু’স্থ হলেন।

এদিকে করোনা ভাই’রাসে আক্রা’ন্ত’দের সংখ্যা ও প্রাণ’হা’নির পরিসং’খ্যান রাখা ওয়েব’সাইট ওয়া’র্ল্ডো’মিটারে দেয়া তথ্য অনু’যায়ী,

এখন পর্য’ন্ত বিশ্ব’ব্যা’পী করো’নাভা’ইরা’সে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ি’য়েছে ১ কোটি ১৩ লাখ ৮২ হাজার ৯৫৪ জনে। এদের মধ্যে মৃ’ত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৩৩ হাজার ৪৭৭ জনের।

করোনা: শেষ পর্যায়ের ট্রায়ালে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন

মহামারি করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে এখনো কোনো কার্যকর ওষুধ তৈরি হয়নি। তবে বেশ কিছু দেশে রেমডিসিভির ওষুধটির ব্যবহার হচ্ছে। কিন্তু এটি করোনাভাইরাস চিকিৎসার অব্যর্থ দাওয়াই এমন কোনো সনদ দেয়নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

এদিকে, করোনাভাইরাসের টিকা উদ্ভাবনে বসে নেই বিজ্ঞানীরা। শতাধিক ভ্যাকসিন নিয়ে বিশ্বের বাঘা বাঘা বিজ্ঞানী কাজ করে যাচ্ছেন। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত হচ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের সম্ভাব্য ভ্যাকসিন।

সংবাদমাধ্যম ফার্স্ট পোস্ট জানায়, এই প্রতিষেধকটির শেষ পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে। তৃতীয় বা শেষ পর্যায়ের ট্রায়ালে ৮ হাজার স্বেচ্ছাসেবকের ওপর এ প্রতিষেধক প্রয়োগ করা হয়েছে।

এই ভ্যাকসিনটিই করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে দীর্ঘমেয়াদি প্রতিরোধ গড়তে সক্ষম হবে বলে দাবি অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন গবেষণার প্রধান ড. সারাহ গিলবার্টের।

তিনি এও বলেন, যারা চিকিৎসা ছাড়াই করোনামুক্ত হয়েছেন, তাদের চেয়ে বেশি সুরক্ষিত থাকবেন, যারা অক্সফোর্ডের প্রতিষেধক ব্যবহার করবেন।

ড. গিলবার্ট জানান, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সফল হয়েছে তাদের তৈরি প্রতিষেধক। একাধিক পরীক্ষায় এর প্রমাণও মিলেছে।

শুধু তাই নয়, তাদের তৈরি এ প্রতিষেধক করোনার বিরুদ্ধে কয়েক বছর ধরে প্রতিরোধ গড়তে সক্ষম হবে বলে দাবি করেন ড. গিলবার্ট।

অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনা প্রতিষেধকের সুরক্ষার মেয়াদ যে দীর্ঘমেয়াদি হবে আগেই জানিয়েছিলেন ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট অ্যাস্ট্রাজেনেকার কার্যনির্বাহী প্রধান প্যাসকাল সরিওট। সরিওট জানান, এ প্রতিষেধক এক বছর পর্যন্ত করোনার সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা দিতে পারবে বলেই অনুমান করা হচ্ছে।তবে অক্সফোর্ডের প্রতিষেধক বিশেষজ্ঞ ও বিশ্ববিদ্যালয়টি ভ্যাকসিনোলজি বিভাগের প্রধান ড. সারা গিলবার্টের দাবি, তাদের তৈরি করোনার প্রতিষেধক বেশ কয়েক বছর পর্যন্ত ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়তে সক্ষম।

তিনি দাবি করেন, শরীরের সাধারণ প্রতিরোধ ক্ষমতার চেয়ে অনেকটাই শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়তে পারবে অক্সফোর্ডের এ প্রতিষেধক।সম্প্রতি ব্রিটেনের হাউস অব কমন্স মন্ত্রিসভার সদস্যদের এ তথ্য জানান তিনি। কয় বছর করোনা থেকে এই ভ্যাকসিন সুরক্ষা দেবে এমন প্রশ্নের সুনির্দিষ্ট উত্তর দেননি সারাহ। বলেছেন, এই ভ্যাকসিনের বিস্তৃত প্রয়োগ ছাড়া এটি বলা সম্ভব নয়।তবে পূর্ববর্তী পরীক্ষা-নিরীক্ষায় আমাদের কাছে মনে হচ্ছে এই প্রতিষেধক বেশ কয়েক বছর রোগ প্রতিরোধ করবে। শরীরে এন্টিবডি তৈরিতে এটি খুবই কার্যকর হবে।

এদিকে ইতোমধ্যে অক্সফোর্ডের প্রতিষেধকের উৎপাদনের কাজ শুরু করে দিয়েছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও বিশ্বের বৃহত্তম প্রতিষেধক প্রস্তুতকারক সংস্থা ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট।

এ ভ্যাকসিনের উৎপাদনের কাজ শুরু হবে ব্রাজিলেও। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ হাজার, ইংল্যান্ডে ১০ হাজার এবং ব্রাজিলে অন্তত দুই হাজার স্বেচ্ছাসেবকের ওপর এ প্রতিষেধকের চূড়ান্ত পর্বের ট্রায়াল হবে।

তবে সব কিছুর আগে প্রতিষেধকের সুরক্ষার বিষয়টিকেই জোর দিয়ে দেখছেন অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা। এ ক্ষেত্রে কোনো রকম তড়িঘড়ি করতে চাইছেন না তারা।

গরুর মাংস খেয়েছি, আবার খাব; কোথাও লেখা নাই গরু খাওয়া যাবে না : মমতা

দিল্লির কেরালা ভবনে গরুর মাংস রাখার অ’ভিযোগে দিল্লি পুলিশ তল্লাশি চালিয়েছিল। ঐ অভিযানের বিরোধিতা জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজধানী দিল্লীতে কেরল সরকার পরিচালিত কেরলা ভবনে গরুর মাংস রাখার অ’ভিযোগে তল্লাশি চালায় পুলিশ। যদিও তল্লাশি অ’ভিযানে

গরুর মাংস খুঁজে পাওয়া যায়নি।এ ঘটনার প্রতিবাদে ভারতের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল প্রতিবাদ জানিয়েছে। একদিকে যেমন কেরল সরকারের তরফে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে, অন্যদিকে তীব্র প্র’তিবাদ জানিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তিনি ক’টাক্ষ করে টুইট করেছিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন,দিল্লি পুলিশের আ’চরণ মৌলিক স্বাধীনতায় হ’স্তক্ষেপ করার সামিল।দিল্লিতে আম আদমি পার্টি পরিচালিত সরকার থাকলেও, দিল্লি পুলিশ সরাসরি ভারত সরকারের দ্বারা পরিচালিত হয়।

তিনি বলেন ‘আমি হিন্দু, গরুর মাংস খেয়েছি, আবার খাব’।হিন্দু ধর্মের কোথাও লেখা নাই যে, গরু খাওয়া যাবে না।এ ঘটনা প্র’কাশ্যে আসার পর প্র’তিবাদে মুখর হয়েছে ভারতের বা’মপন্থী দলগুলোও। সিপিএম’র সাধারণ সম্পাদক সী’তারাম ইয়েচুরি জানিয়েছেন, পুলিশ ‘নীতি পুলিশ’র ভূ’মিকায় অবতীর্ণ হয়েছে।

৬ই জুলাই চট্টগ্রাম থেকে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট

চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দর থেকে ৬ই জুলাই আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট চলাচল শুরু হচ্ছে।
ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে বাংলাদেশ বিমানের সবকটি ফ্লাইট আপাতত চলাচল শুরু হচ্ছে-এমন

তথ্য জানিয়েছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের চট্টগ্রাম বিমানবন্দরের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক ইমরুল হাসান।

তিনি জানান, করোনা সংক্রমণের কারণে গত ২৬শে মার্চ থেকে চট্টগ্রাম থেকে আন্তর্জাতিক রুটে নিয়মিত ফ্লাইট

চলাচল বন্ধ হওয়ার পর পুনরায় শুরু হচ্ছে।
আগামী ৬ই জুলাই সোমবার দুপুর পৌঁনে ২টায় চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাত্রা শুরু

হবে নতুন ফ্লাইটের।
শুরুতে চট্টগ্রাম থেকে সরাসরি দুবাই এবং আবুধাবি যাওয়ার কথা থাকলেও আপাতত ঢাকা শাহজালাল

আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে যাবে
চট্টগ্রামের বাংলাদেশ বিমানের সবকটি ফ্লাইট। চট্টগ্রামের যাত্রীরা বাংলাদেশ বিমানের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে ঢাকায়

গিয়ে সেখান থেকে ২৭১ যাত্রী ধারণ ক্ষমতার ড্রিমলাইনার বিমানযোগে সন্ধ্যা ৭ টায় দুবাই এবং আবুধাবি রুটে

যাত্রা করবে। প্রতি সপ্তাহে চট্টগ্রাম দুবাই এবং চট্টগ্রাম আবুধাবি রুটে ২টি করে মোট ৪টি ফ্লাইট পরিচলানা করা হবে। সবকটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে ২৭১ যাত্রী ধারণ ক্ষমতার ড্রিমলাইনার বিমান দিয়ে।

তিনি আরও বলেন, আগামী ৮ই জুলাই থেকে চট্টগ্রাম আবুধাবি রুটে প্রথম ফ্লাইট যাওয়ার কথা থাকলেও

সেটি বাতিল করা হয়েছে। শিডিউল অনুযায়ী দুই রুটের পরবর্তী ফ্লাইটগুলো যথারীতি চলবে।

এছাড়া চট্টগ্রাম থেকে আভ্যন্তরীণ রুটে রোববার থেকে ৩টি ফ্লাইট শুরু করছে বিমান।
এর আগে ১লা জুন চট্টগ্রাম থেকে আভ্যন্তরীণ রুটে রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থার ফ্লাইট পরিচালনার কথা থাকলেও

যাত্রী স্বল্পতার কারণে বাতিল করা হয়েছিল।

করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার আগে চট্টগ্রাম থেকে বাংলাদেশ বিমান চট্টগ্রাম-আবুধাবি রুটে সপ্তাহে চারদিন এবং

চট্টগ্রাম-দুবাই রুটে সপ্তাহে তিনদিন ফ্লাইট পরিচালনা করতো।

বাংলাদেশ বিমানের জুলাই মাসের শিডিউল অনুযায়ী ৬, ৮, ৯, ১২, ১৩, ১৫, ১৬, ১৯, ২০, ২২, ২৩, ২৬, ২৭, ২৯

ও ৩০শে জুলাই চট্টগ্রাম থেকে দুই রুটে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনার কথা রয়েছে।

এর মধ্যে ৮ই জুলাই আবুধাবির ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক উইং কমান্ডার এবিএম সরওয়ার ই জামান বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকার পর ৬ই জুলাই চট্টগ্রাম থেকে শুরু হচ্ছে আন্তর্জাতিক রুটে যাত্রী পরিবহন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স চট্টগ্রাম দুবাই এবং চট্টগ্রাম আবুধাবি রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করবে।

ইতোমধ্যে এয়ার এরাবিয়া চট্টগ্রাম থেকে ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি নিয়েছে। আশা করছি অন্যান্য বিমান

সংস্থাগুলোও শিগগিরই বিভিন্ন আন্তর্জাতিক রুটে পুনরায় ফ্লাইট শুরু করবে।

তিনি আরও বলেন, আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের যাত্রীরা কোভিডমুক্ত কিনা সেটি ইমিগ্রেশন বিভাগ যাচাই করবে।

এছাড়া যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার যে নির্দেশনা রয়েছে সেগুলো নিশ্চিত করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত ১লা জুন থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচল শুরু হওয়ার পর চট্টগ্রাম থেকে ইউএস বাংলা ৪টি

এবং নভোএয়ার ৩টি ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

বাংলাদেশ বিমান শিডিউল দেওয়ার পরও যাত্রী স্বল্পতায় চট্টগ্রাম থেকে ফ্লাইট পরিচালনা করেনি।

রোববার থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে ৩টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

বিদ্যুৎ বিল দিতে কিডনি বিক্রির ঘোষণা অভিনেতার!

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ ছিল সব রকমের কাজ। তাই গেল তিন মাস বিদ্যুতের বিল স্থগিত রাখতে সংস্থাগুলোকে অনুরোধ করেছিল ভারতের মহারাষ্ট্র সরকার।সেই অনুরোধ প্রাধান্য দিয়ে মার্চ থেকে মে মাস বিল পাঠায়নি কোনো বিদ্যুৎ বন্টনকারী সংস্থা।তবে, গেল জুন থেকে বিদ্যুৎ বিল

আসা শুরু হয়। তবে বিদ্যুৎ বিলের অংক দেখে মাথায় হাত বলিউড তারকাদের।ইতিমধ্যে মুম্বাই শহরে বিদ্যুৎ বণ্টনের দায়িত্বে থাকা টুইট করা শুরু করেছেন তাপসী পান্নু থেকে সোহা আলি খান। সেই তালিকায় নাম আছে হুমা কুরেশি থেকে রাজ কুন্দ্রার।এ তালিকায় নাম ঢুকিয়েছেন আরশাদ ওয়ারসির। তবে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে না লিখে সরাসরি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ভাতীয় সংবাদমাধ্যম বম্বে টাইমসে।সেই সাক্ষাৎকারের সংবাদ আরশাদ ওয়ারসির নিজের

টুইটারে পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখেন, ধন্যবাদ রচনা এবং বম্বে টাইমস।অনুগ্রহ করে আমাকে কিনুন। আদানি পাওয়ারকে বিদ্যুতের বিল মেটাতে পরের মাসের জন্য আমার একটা কিডনি বরাদ্দ রাখলাম।এদিকে, তার টুইটটি ভাইরাল হতেই মজা নিচ্ছেন নেটিজনরা। তার এমন রসিকতার তারিফও করছেন অনেক।

মিথিলার স্বামী সৃজিতের নজর জয়ার দিকে, ধর্ম ত্যাগ করতেও রাজি

দেশের জনপ্রিয় মডেল, অ’ভিনেত্রী ও উপস্থাপিকা রাফিয়াত রশিদ মিথিলার সঙ্গে গেল ডিসেম্বরে বিবাহবন্ধরে আবদ্ধ হন কলকাতার গুণী নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি।

ঠিক ওই সময়ই দুই বাংলার জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী জয়া আহসানের সঙ্গে সৃজিতের নাম জড়িয়ে একটি বিশেষ

প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল ভা’রতের শীর্ষ স্থানীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা। সেখানে জয়ার কাজের ধরন, মেধা নিয়ে এমন কয়েকজন নির্মাতা মতামত জানিয়েছিলেন যাদের সঙ্গে জয়া কাজ করেছেন।

সেই তালিকায় ছিল সৃজিত মুখার্জির নাম। ‘অটোগ্রাফ’, ‘২২শে শ্রাবণ’ খ্যাত নির্মাতা সৃজিতের বরাত দিয়ে সেই

প্রতিবেদনসহ আরও বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে ফলাও করে খবর বেরিয়েছিল, জয়ার জন্য এতটাই উতলা ছিলেন সৃজিত, জয়া বিয়েতে রাজি থাকলে প্রয়োজনে হিন্দু ধ’র্ম ছেড়ে ইস’লাম ধ’র্ম গ্রহণ করতেন তিনি।

সৃজিতের ‘রাজকাহিনী’তে ছোট চরিত্রে অ’ভিনয় করেও সকার চোখ কেড়েছিলেন জয়া আহসান।

পরে সৃজিতের ‘এক যে ছিল রাজা’তে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অ’ভিনয় করেন। ওইসময় জয়া সৃজিতের প্রে’মের স’ম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন ছড়ায়। তারা একসাথে ছাদ ভাগাভাগি করছেন বলেও শোবিজ অঙ্গনে গুঞ্জনও ছড়ায়।

তবে জয়ার জন্য ধ’র্মান্তরিত হওয়া নিয়ে খবর বেরুনোর পর সৃজিত তাতে ঘোর আ’পত্তি তোলেন।

তিনি বলেছিলেন, ‘প্রত্রিকাগুলোর খবরে ধ’র্ম ত্যাগ করার ব্যাপারে আমা’র কোন বক্তব্য বা কোট নেই।

সুতরাং আমি কোথায় ধ’র্মান্তরিত হতে চাইলাম! আমি জয়াকে বিয়ে করার জন্য ধ’র্মান্তরিত হতে চাই এ খবর পুরোপুরি ভিত্তিহীন।’

মধ্যপ্রাচ্যে ৭৫৩ বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃ’ত্যু!

বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া করোনায় মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে এখন পর্যন্ত অন্তত ৭৫৩ বাংলাদেশি মৃ’ত্যুবরণ করেছেন। এদের মধ্য শুধুমাত্র সৌদি আরবেই প্রায় পাঁচ শতাধিক প্রবাসী প্রা’ণ হারিয়েছেন।

করোনায় মধ্যপ্রাচ্যে ৭৫৩ বাংলাদেশি প্রবাসী মা’রা গেছেন। মহামা’রী করোনায় জিসিসিভুক্ত মধ্যপ্রাচ্যের ছয় দেশে এখন পর্যন্ত ৭৫৩ বাংলাদেশীর মৃ’ত্যু হয়েছে।

কেবল সৌদি আরবেই মা’রা গেছেন পাঁচ শতাধিক প্রবাসী। সৌদি আরবসহ জিসিসিভুক্ত দেশগুলোতে বাংলাদেশ দূতাবাস এবং অন্যান্য সূত্র থেকে এসব খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে।

শনিবার বিকেল পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনায় প্রায় ৫০০ জনের বেশী বাংলাদেশি মা’রা গেছেন।

এর মধ্য গত ২ জুলাই সৌদিতে এক বাংলাদেশি নারী চিকিৎসক করোনায় মা’রা যান। এ নিয়ে সৌদি আরবে ক’রো’না আক্রা’ন্ত হয়ে নিহ’ত হয়েছেন মোট ৭ জন বাংলাদেশি ডাক্তার।

অন্য ৫ বাংলাদেশি ডাক্তার হলেন ডা. মোহাম্মদ শফিউল্লাহ (রণক),ডা. আবদুর রহিম, ডা. আফাক হোসেন, ডা. গোলাম মোস্তফা ও ডা. আনোয়ার উল হাসান।

এদের মাঝে ডা. আফাক হোসেন সৌদি আরবে করোনা আ’ক্রা’ন্ত হয়ে মা’রা যাওয়া প্রথম বাংলাদেশি ডাক্তার।

এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতে মা’রা গেছেন প্রায় ১২৫ জন প্রবাসী। আর কুয়েতে মা’রা গেছেন ৬০ জন বাংলাদেশি।

এছাড়া ওমানে ২০ জন, কাতারে ১৮ জন ও বাহরাইনে ৯ জন প্রবাসী বাংলাদেশি মা’রা গেছেন।

সব মিলিয়ে জিসিসিভুক্ত ছয় দেশে এখন পর্যন্ত মা’রা গেছেন ৭৫৩ জন।করোনায় বাংলাদেশি প্রবাসীরা উল্লেখসংখ্যক হারে আ’ক্রান্ত ও মৃ’ত্যুবরণ করেছেন, যা আশংকাজনক।

মূলত, বাংলাদেশিদের মাঝে ক’রোনা ভা’ইরাস সংক্রমণের হার বেশি হওয়ার একটি কারণ অল্প জায়গায় অনেক বেশি শ্রমিকের বসবাস।

এছাড়া প্রবাসে কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিকরা সবসময় দলবদ্ধভাবে চলাফেরা করতে পছন্দ করেন, ফলে তাদের মধ্যে বেশ দ্রুত সংক্রমণ ছড়ানোর ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।এছাড়া, বাংলাদেশি প্রবাসী শ্রমিকরা সবাই এক জায়গায় থাকতে চায়।

তারা অধিকাংশই একসাথে থাকতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।এছাড়া শুরু থেকেই করোনা ভাইরাস নিয়ে বাংলাদেশি শ্রমিকদের মধ্যে তেমন কোন সচেতনতা ছিল না বলে জানান এই সিঙ্গাপুর প্রবাসী।

অনেক প্রবাসীর ধারণা ছিল যে করোনা ভাইরাস তাদের ধরবে না। তারা মনে করতেন, এটা শুধু চায়নিজদের হয় আর বয়স্কদের হয়।

হ্যাঁ, আমি মুসলিম, আমাকে বাঁচতে দিন’: মৃ’ত্যুর হু’মকি পেয়ে বললেন আয়মান সাদিক

অনলাইনের জন’প্রিয় প্ল্যা’টফর্ম ‘টেন মিনিট স্কুলে’র প্রতি’ষ্ঠাতা আয়মান সাদিককে মেরে ফেলার হুম’কি দেয়া হচ্ছে।

এ কথা তিনি নিজেই নিজের ভেরি’ফায়েড পেজে একটি ভিডিও আপ’লোড করে জানিয়েছেন।

রবিবার (৫ জুলাই) বিকেলে আপ’লোড করা এ ভিডি’ওতে আয়মান সাদিক বলেন, ‘বাই’রের দেশে থাকা ভিন্ন বি’শ্বা’সের টেন মিনিট স্কুলের এক সা’বেক ক’র্মীর সমকা’মীতা নিয়ে দেয়া পো’স্টের কারণে আমাকে এ হুম’কি দেয়া হচ্ছে।

আয়মান সাদিক এসময় দুঃখ নিয়ে বলেন, আমি কখনো ভাবি নি আমাকে পাবলিকলি নিজের ধর্মের হিসাব দিতে হবে।

হ্যাঁ, আমি মুসলিম। আমাকে বাঁচতে দিন। আমার বাবা-মা কিছু’ক্ষণ পরপর আমাকে দেখে যাচ্ছে।

টেন মিনিট স্কু’লের এক সাবেক কর্মীর ব্যক্তি’গত পো’স্টের কারণে আমাকে আমার ধর্মের হিসেব দিতে হবে,

টেন মিনিট স্কুলকে মানুষ বয়’কট করতে বলবে তা আমি কখনো ভাবি নি। সূএঃবিডি২৪লাইভ ডট কম

ছেলেকে গু’লি করে মা’রতে পুলিশকে অনুরোধ মায়ের

সম্প্রতি ভারতে এক কু’খ্যাত স’ন্ত্রা’সীকে ধ’রতে গিয়ে ৮ পুলি’শ সদ’স্য প্রা’ণ হারান। দেশটির উত্ত’রপ্র’দেশে কু’খ্যা’ত স’ন্ত্রা’সী বিকা’শ দুবেকে ধর’তে গিয়ে এই ঘ’টনা ঘটে।

হা’ম’লার পর ৩৬ ঘণ্টা পার হলেও এখনও বিকাশ ও তার দলবলের খোঁ’জ পায়নি পু’লি’শ।

এদিকে ভার’তীয় গণ’মাধ্যম আনন্দ’বাজার জানায়, তবে ওই ঘট’নায় ছে’লের কাজে চরম ক্ষু’ব্ধ বিকা’শের পরিবার।তার মা সরলা দেবী জানিয়েছেন, তার ছেলেকে যেন মে’রে ফেলে পু’লি’শ।তিনি বলেন, গত চার মাস বিকা’শের সঙ্গে দেখা হয়নি। ছোট ছেলের স’ঙ্গে লখ’নৌতে থাকি। তবে বিকা’শের অ’প’কর্মের জন্য বার বার সম’স্যা’য় পড়তে হয়ে’ছে আমা’দের। ওর আ’ত্ম’সম’র্পণ করা উচিত।নই’লে ওকে খুঁ’জে পেলেই এন’কা’উন্টার করে মা’রা হোক। সারা’জীবন অনেক পাপ করেছে। ওকে গু’লি করে মে’রে ফে’লা উচিত।

গত শুক্র’বার ভো’রে উ’ত্ত’রপ্রদে’শের কানপুরে ৬০ মাম’লার আসা’মি স’ন্ত্রা’সী বি’কাশ দুবেকে ধরতে গেলে অতর্কিত হা’মলার শি’কার হয় পুলি’শ। এতে পুলি’শের একজন সুপা’রিন্টে’ন্ডেন্ট, তিনজন এস’আই ও চার’জন কন’স্টেবল ঘট’নাস্থ’লেই নি’হত হন।পুলি’শের ওপর হাম’লার পর ৩৬ ঘ’ণ্টা কেটে গেলেও এখনও বিকাশ ও তার দলব’লের খোঁজ পায়নি পু’লিশ।তবে বিকা’শের বাবা রাজ’কুমার দু’বেকে আ’টক করেছে পু’লিশ। তার কাছ থেকে ছেলের গতি’বিধি জানার চে’ষ্টা হচ্ছে।

এদিকে বিকাশ ও সঙ্গী’দের গ্রে’ফ’তারের জন্য ২৫টি দল তৈরি করেছে পু’লিশ। অভিযানে নে’মেছে স্পে’শা’ল টা’স্ক ফো’র্সও। বিকা’শের অব’স্থান স’ম্প’র্কে জানতে পাঁচ’শো’রও বেশি মো’বা’ইলের তথ্য খতি’য়ে দেখা হচ্ছে। তার ব্যা’পারে তথ্য দিলে ৫০ হাজার টাকা পুর’স্কা’রেরও ঘো’ষ’ণা করা হয়েছে।

মাত্র ৯৫ হাজার টাকায় ইলেকট্রিক কার!

প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনের নতুন মাত্রা ইলেকট্রিক প্রাইভেটকার। পরিবেশ বান্ধব-খরচ কম থাকায় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এটি।

এমনকি ছোট আকার ও চমৎকার ডিজাইনের ইলেকট্রিক প্রাইভেটকার মাত্র ৯৫ হাজার টাকায় বাংলাদেশেও পাওয়া যাচ্ছে। এ প্রাইভেটকারে আরামসে চালকসহ চার জন চলাফেরা করা যায়।

বাংলাদেশের বাজারে ইলেকট্রিক গাড়ি বিক্রি করছে চায়না লোংসিদা বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান। তাদের ইলেকট্রিক বাহনের মধ্যে রয়েছে ইজি বাইক, পিকআপ, ভ্যান ইত্যাদি।

৯৫ হাজার টাকা দামের প্রাইভেটকারের সঙ্গে ব্যাটারি নেই। আলাদাভাবে ব্যাটারি কিনে সংযোজন করতে হবে।

কারে চারটি ব্যাটারি প্রয়োজন। যার দাম পড়বে ৪০ হাজার টাকা। প্রাইভেটকারের সঙ্গে ইলেকট্রিক মোটর, চার্জারসহ আনুষঙ্গিক সব কিছুই দেয়া রয়েছে।

চায়না থেকে ইলেকট্রিক প্রাইভেটকারের যন্ত্রাংশ আমদানি করে গাজীপুরের মাওনার কারখানায় কার রূপান্তর করে বিক্রি করা হচ্ছে।

এর মধ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ক্রেতারা কারটি সম্পর্কে খোঁজ নিচ্ছেন। কেউবা কিনেও নিচ্ছেন। এতে কারটির চাহিদা বেড়েছে। সিঙ্গেল চার্জে এ প্রাইভেটকারটি ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত চলবে।

প্রতিষ্ঠানটির অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড লিগ্যাল বিভাগের ম্যানেজার শামীম হোসাইন জানান, এ ইলেকট্রিক প্রাইভেটকারটি দৈর্ঘ্য সাড়ে সাত ফুট ও প্রস্থ চার ফুট।

উচ্চতা সাড়ে পাঁচ ফুট থেকে ছয় ফুট পর্যন্ত। এর সঙ্গে রয়েছে ১০০০ ওয়াটের একটি মোটর ও চার্জ কন্ট্রোলার, ৪৮ ভোল্টের একটি চার্জার, একটি স্পেয়ার চাকা ও একটি টুলস বক্স।

তিনি আরো জানান, ইলেকট্রিক প্রাইভেটকারের সঙ্গে ব্যাটারি নেই। আলাদাভাবে ব্যাটারি কিনতে হবে। যার দাম পড়বে ৪০ হাজার টাকা।

বিস্তারিত জানতে প্রতিষ্ঠানটির ফেসবুক পেজে ভিজিট করুন: https://www.facebook.com/CHINA-LONGSHIDA-BANGLADESH-CO-LTD-1886707584937024/